বিজয়িনী

প্রেম না শিখেই তোমায় ভালোবেসে ছিলাম;
এইতো ছিল আমার বোকামি।
তুমি দক্ষ ছিলে, সুতীক্ষ্ম মারপেঁচে নিপুণ ছিলে;
বিষাদ তোমায় ছুঁতেও পারেনি।
আমি আনাড়ি ছিলাম, প্রেমে মত্ত ছিলাম ;
চতুরতা তোমার, বুঝতেও পারিনি।

এমনই মায়ায় জড়ালে, ভালোবাসার ছলে,
আদরে আদরে; ওগো সুহাসিনী!
বিচ্ছেদের অনলে আজও জ্বলি দিবানিশি,
আজও করি হাহাকার, নির্ঘুম কাটে রজনী!

কি দক্ষ ছিলে তুমি!
ছলনার নিপুণতায় আকৃষ্ট করে আমায়;
বেঁধেছো মায়াডোরে, করেছো পাগল।
সঙ সেজে তুমি মুছে দিলে আমার জীবনেরই রঙ;
শেষে আমায় নিস্ব করতেও তোমার বাঁধেনি!
প্রেম না শিখেই তোমায় ভালোবেসে ছিলাম;
এইতো ছিল আমার বোকামি।

কত কি করলে তুমি, দেখিয়েছো আরও কত্ত কি!
অথচ আমি তার কিঞ্চিৎও পারিনি।

আমার বাকি জীবনটা হয়তো তোমায় ভেবেই
কেটে যাবে একদিন;
তুমি বিজয়িনী হবে।
পরাজয় মেনে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করবো আমি;
জেনে রেখো, তখনও আমার হৃদয়ে তুমিই থাকবে।

জানি, আমার অদক্ষতার পরিচয় রয়েই যাবে।
সিদ্ধহস্ত তুমি, তোমার যে বিজয়িনীর পরিচয়ই রবে!

কবি এস ইসলাম রাজীব

সকল পোস্ট : এস ইসলাম রাজীব

৮ thoughts on “বিজয়িনী

  1. পরা‌জিত প্রেমি‌কের অন্তরজ্বলা কষ্ট কি দ‌য়িতা বুঝ‌তে পা‌রে? যে পা‌রে না, সে মানবী নয়, তা‌কে ভা‌লো‌বে‌সে ঠ‌কেই যে‌তে হ‌বে। এটাই পৃ‌থিবীর নিয়ম।

    সহজ ক‌রে লিখ‌তে অ‌নে‌কেই পা‌রে না, আপ‌নি পে‌রেছেন।

    কবিতা ভা‌লো লে‌গে‌ছে।

মন্তব্য করুন