নীরবতা

নীরব থাকতে পৃথিবী ভালবাসে!
আলোকময় জ্বালানি রাতের আকাশ
ঘাম ঝরান দিনের উত্তাপ অথচ
কোথায় জানি ইটভাটার অনল জ্বলছে
খুঁজে পাওয়া যায় না-
এ নীরব জেনো মৃত্যুর মজলিসের স্বাদ
সারি বদ্ধ কলা গাছের দুইসারি বাঁধ!
তারচেয়েও ঘুম জানি মাটির নীরবতা আশ;
সমস্ত ভালবাসা একমুঠো জল-
অতঃপর ভালবাসা মানেই সবুজ রাঙা নীরবতা।
20 ভাদ্র ১৪২৮, ০4 সেপ্টেম্বর ২১

কবি আলমগীর সরকার লিটন

বাস্তব সময়ে সহজ সরল জীবন হোক নিত্যকাল, মৃত্যু তো সামনে ঘুমের অদূর স্বাদে মৃত্যু হয়; তবুও জীবনের গতি চিনার খানিক ভুল হয়- কিছু কবিতা চায়ণ অমরত্ব সৃষ্টি সাধন রয়! বেঁচে থাকা মানে যন্ত্রনাময় এক সুখের ঠিকানায় ক্ষয়! উত্তর দক্ষিণে চাঁদ সূর্য নাই মাটির জয়।
সকল পোস্ট : আলমগীর সরকার লিটন

৬ thoughts on “নীরবতা

  1. বাউল তুমি বেশ লিখেছ।

    খোঁজে পাওয়া যায় না-
    খোঁজে না, খুঁজে হবে।

    উদাহরণটা লক্ষ্য করো : বইটি খুঁজে খুঁজে হয়রান।
    বইটির খোঁজে পাবলিক লাইব্রেরিতে যেতে হয়েছে।

    একটু ভাবো এই দুটি শব্দ নিয়ে।

মন্তব্য করুন