চোখ

চোখে চোখে দেখা
কাছে ডাকা,
ঠোঁটের ঐ মুস্কি হাসা
মনে তোলে দাগা,
হৃদয়ে তোলে ঝঞ্জা
এই বুঝি নেই রক্ষা।

তাকাও না যে নয়নে
বাকা বা আড় চোখে
নিচু কিবা উচু নয়নে
অন্তরে মোর ঝড় ওঠে
ঐ নয়নে নজর পরলে।

জাদু আছে কি যে
ঐ আখি পল্লবে
মরি! মরি! আহা মরিরে
ঐ চক্ষু খনিতে।

তোমার চোখের দহনে
আমি জ্বলি অন্তর জ্বলে,
যুগল চোখ অবিরাম চেয়ে
দৃষ্টি দোলে শুধুই দোলে
ঝরাপাতা ছড়ানো উঠানে ।

দৃষ্টি ক্লান্ত দিনহীনে
তেপান্তর পেরিয়ে
গোধুলী লগ্নে হাফিয়ে
তোমার চক্ষুর মাঝে
দিতাম ডুব অতল গহীনে।

অলস মনে ঐ চক্ষুতে
নিই সুখ খুজে তোমাতে।

কবি মোঃ মজিবর রহমান

এই ধরার বৃত্তে চলমান একজন মানুষ। এই মানুষ হয়েই থাকার আপ্রাণ চেষ্টা করে যাই।
সকল পোস্ট : মোঃ মজিবর রহমান

৪ thoughts on “চোখ

  1. আমাদের এই কবি তো দেখছি চোখের প্রেমে বিভোর! তবে হ্যাঁ চোখ জীবের অন্যতম একটি অঙ্গ যা থেকে কেবল কাব্য কবিতা নয়! এটি তার স্বভাবের বৈশিষ্ট অনেকাংশে বহন করে।
    যাই হোউক কবিতা ভালো হয়েছে।

মন্তব্য করুন