জলছবি প্রকাশন

সৃজনশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান

Home » অনেক কথা [প্রথম পর্ব]

অনেক কথা [প্রথম পর্ব]

‘কপাল ভালো’ ‘কপাল খারাপ’ ‘কপালে আছে’ ‘কপালে নেই’ ‘কপালগুণে’ ‘কপালদোষে’ ‘কপাল এমন’ ‘হায় রে কপাল’ ইত্যাদি—কপালকে ঘিরে ভালমন্দের কত কথাইনা হয়, তত কথা বোধহয় অন্যকোনো ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে হয় না। কতইনা অঘটন ঘটে গেছে—ঘটে যাচ্ছে এ বিশ্বে—মহাকাশে—মহাদেশে—দেশে দেশে—ঘরে ঘরে কার খবর রাখি কে। সৃষ্টিকে নিয়ে আজ আমাদের কী উৎসুক—কত আস্ফাল! হায়! কাল কী হবে—কী ঘটতে যাচ্ছে পৃথিবীতে যদি এটুকু জানতাম সবাই! দেখছি দিনদিন শুধু পৃথিবীর উন্নতি বাড়ছে, দেখছি না অভ্যন্তরে তার কী অবনতি ঘটছে। মানুষ সৃষ্টি থেকেই ‘যুদ্ধ’ ‘যুদ্ধ’ করে মরছে! কে কার ঘর—কার দেশ দখলে নেবে প্রতিনিয়ত তার চর্চা চলছে। কাল বাঁচব কি না, কী ভয়াবহতা অপেক্ষা করছে পৃথিবীর জন্যে এবং কী হতে পারে প্রকৃতির রূপ—কেউ কি জানি তা? জানি না। কারণ ধারণার উপর কোনকিছু প্রতিষ্ঠিত হয়নি এবং হবেও না। ভবিষ্য জানার আগ্রহ সবার থাকলেও জানা সম্ভব নয়। কারো কারো মতে, আজ বাঁচতে পারলেই হয়। আমি খেতে পারলেই হয়। আমার সুবিধা হলেই হয়। আমরা সকলে কেবল নিজ নিজ স্বার্থের কথা ভাবি। অনাত্মীয় দূরে থাক, আত্মীয়তা ও স্বজনপ্রীতিতেও আজ আমরা বিমুখ। আমাদের কাছে আজ কোনো বন্ধনেরই গুরুত্ব নেই। অর্থের কাছে সম্পর্ক এতটাই গৌণ হয়ে যাচ্ছে যে, যতটা-না উচ্চের কাছে তুচ্ছ। এভাবে চলতে চলতে কবে নাজানি দয়ামায়া, আদরস্নেহ ও শ্রদ্ধাশীল কথা বা শব্দগুলো মানুষের মুখ থেকেই নয়, অন্তর থেকেও মুছে যায়—কে জানে! ‘বিপদে বন্ধুর পরিচয়’ এমন কথা হয়ত একদিন প্রবাদেও থাকবে না। মানুষ মায়ামমতা থেকে ক্রমান্বয়ে অনেক দূরে সরে যাচ্ছে। ‘সবকিছু অদৃষ্টের লিখন’ যাঁরা সব সময় কপালের দোষ দিয়ে বসে থাকে, তাঁরা নাজানি সাঙ্ঘাতিক ঘটনাবলী ও দৈবত্বকে কী বলে! আর কেউ ‘উদ্দেশ্যহীন’ ‘উদ্দেশ্যহীন’ বিশ্ব নিয়ে পাগলামির যাত্রায় নেমেছে! বুঝা দরকার, অন্ধ হওয়া স্বাভাবিক কিন্তু অন্ধের মতো চোখ বন্ধ করে সবকিছু মেনে নেওয়া অস্বাভাবিক। যাঁরা মধ্যম তাঁরা হয়ত চিন্তাশীল। কোনেক অদৃশ্য ইশারায় সবকিছু চলছে এবং ঘটছে। প্রত্যেক চলনা আর ঘটনার পিছনে যে কোনো কারণ নেই (উদ্দেশ্যহীন) এমন ভাবা অযৌক্তিক। কিছু-না-কিছু হেতু ত অবশ্যই আছে—সমস্ত ঘটনের পিছে। যতই যুক্তি থাকুক, এমনি এমনি কোনকিছুই ঘটে না এবং ঘটবে না। তদ্রূপ মানতে হবে, কপালদোষে ও কপালগুণেও সবকিছু হয় না; কিছু ঘটনা আদতের দ্বারাও ঘটে থাকে।

চলবে…

Name of author

Name: আযাহা সুলতান

৬ Replies to “অনেক কথা [প্রথম পর্ব]”

মন্তব্য করুন